Kolkata to Dhaka Cosmetics Shipment

ইণ্ডিয়ান কসমেটিকস এর চাহিদা বরাবরই বাংলাদেশে অনেক বেশি। আর বর্তমানে অন-লাইন বিজনেসের উদ্যোক্তারাও এই সকল প্রোডাক্ট নিয়ে কাজ করতে বেশ আগ্রহী। কসমেটিকস ছাড়াও চাহিদা রয়েছে মেক-আপ আইটেমেরও। হোক সেটা কসমেটিকস, অথবা মেক-আপ এই আইটেম গুলার প্রচুর ভ্যারিয়েশন। সাইজ, ফ্লেভার, টাইপ, Ingredients, কালার সব মিলিয়ে এক একটা প্রোডাক্টেরই অনেক গুলা ভ্যারিয়েশন থাকে। বিপত্তির শুরু সেখানেই। আসলেই কি Kolkata to Dhaka Cosmetics Shipment করা যায়? কারণ প্রচুর ভ্যারিয়েশনের ফলে নির্দিষ্ট আইটেমের চাহিদা কমে। টোটাল আইটেমের চাহিদা সংখ্যায় অনেক হলেও একই ধরনের আইটেমের চাহিদার পরিমাণ কম হয়। এই প্রশ্ন কেনো আসছে? জানাচ্ছি।

Kolkata to Dhaka Cosmetics Shipment এর কিছু সীমাবদ্ধতা

Kolkata to Dhaka Cosmetics Shipment করতে গেলে সবার শুরুতে আপনাকে হতাশ হতে হবে একটা নিয়মেই। কাস্টমসের নিয়ম অনুযায়ী কাস্টমস ক্লিয়ারেন্সের জন্য প্রতিটা ভিন্ন আইটেমের জন্য BSTI এর সার্টিফিকেশন প্রয়োজন। যা প্রতিবার ইমপোর্টের সময় কাস্টমস থেকে স্যাম্পল প্রোডাক্ট নিয়ে গিয়ে সার্টিফিকেশন করিয়ে আনতে হয়। এক একটা সার্টিফিকেশনের জন্য আনুমানিক খরচ হয় ৩০-৪০ হাজার টাকার মতো।

এই একটা কারণে আপনি যদি Kolkata to Dhaka Cosmetics Shipment করতে চান সবার শুরুতেই আপনাকে হতাশ হতে হবে সঠিক তথ্যের অভাবে। অনেকেই না জেনে আপনাকে বলে দিবে সম্ভব। কেনো জানেন? বাংলাদেশে ইণ্ডিয়ান পণ্যের প্রচুর চাহিদা থাকার কারণে অনেকে এজেণ্ট হিসেবে কাজ করে, যাদের অনেকেই কি করা যাবে বা কি যাবে না সে খুটি-নাটি জানে না। আবার অনেকে আছে অবৈধ উপায়ে পাঠিয়ে একটু বেশি ইনকাম করার চেষ্টায় আপনাকে আশ্বস্ত করবে যে পাঠানো যাবে। মনে রাখবেন আপনি যখনই ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে জিনিস কিনে ফেলবেন তখনই আপনি ফাঁদে পড়ে গেলেন। যেকোন উপায়েই হোক আপনাকে সেটা আনতেই হবে।

কলকাতা থেকে ঢাকায় কি কি আইটেম ইমপোর্ট করা যায় তার বিস্তারিত দেখে নিন। নিজেই বুঝতে পারবেন কোন পণ্য সহজে ইমপোর্ট করা যায় আর কোন পণ্যের জন্য একটু সময় নিতে হবে। সবশেষে এটাই দাঁড়ায় যে, আপনি যদি কসমেটিকস ইমপোর্ট করতে চান আপনাকে Bulk Quantity তে ইমপোর্ট করতে হবে যাতে করে আপনার একটা আইটেমের উপর BSTI এর সার্টিফিকেশনের জন্য যে খরচ টা আসে তা সহনীয় পর্যায়ে পড়ে।

Back to blog