Kolkata to Dhaka Shipping Cost

লক-ডাউন এবং নতুন বাজেটের পর Kolkata to Dhaka Shipping Cost নাটকীয়ভাবে বেড়েছে। যেখানে আগে প্রায় সব ধরনের আইটেমই প্রতি কেজি হিসেবে Costing করা সম্ভব হতো এখন তা প্রতি পিস হিসেবে Count করা হচ্ছে।

kolkata-to-dhaka-shipping-cost

মূলতঃ লক-ডাউনের ঠিক পূর্ব মুহূর্তে অনেক শিপমেণ্ট কলকাতার কাস্টমস প্রসিডিউরে থাকা অবস্থা আটকে পড়ে। এটা মার্চ মাসের ঘটনা। প্রায় ৪ মাস পর যখন জুলাই মাসে শিপমেণ্ট চালু হয় প্রথম ধাক্কাটা তখনই আসে। বাংলাদেশ কাস্টমস খরচ বেড়ে যায় কয়েক গুণ। আচমকা সিদ্ধান্ত আসে শাড়ি প্রতি ট্যাক্স-ডিউটি প্রদান করতে হবে। এতে করে ইমপোর্ট ব্যবসায়ীরা পড়েন তোপের মুখে। একে তো ৪ মাস ব্যবসা বন্ধ, তার উপর অস্বাভাবিক হারে শিপিং খরচ বৃদ্ধি। সব মিলিয়ে পরিস্থিতি হয়ে উঠে ভয়াবহ।

এই ধাক্কা সামলাতে না সামলাতেই আগস্টের প্রথম সপ্তাহে সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয় যে এখন থেকে প্রায় সব ধরনের আইটেমই প্রতি পিস হিসেবে কাউণ্ট হবে। এই সিদ্ধান্তের ফলে পণ্যের খরচ বেড়ে যায় কয়েক গুণ। ৫০০ রুপি মূল্যের একটা শাড়ি ইমপোর্ট করতেও শুধুমাত্র তার শিপমেণ্ট আর কাস্টম ক্লিয়ারেন্সে খরচ পড়ে যায় প্রায় ৮০০ টাকা, বা ক্ষেত্র বিশেষে তারও বেশি।

এদিকে Developing বিজনেস ইণ্ডাস্ট্রি e-commerce সেক্টর পড়ে বিপাকে। বেশিরভাগ অনলাইন উদ্যোক্তাই প্রি-অর্ডার নিয়ে কাজ করছেন, অথবা স্বল্প পরিসরে কম মূলধন বিনিয়োগ করে ব্যবসায় করছেন। তাদের জন্য এ চাপ সামলানো খুবই কঠিন হয়ে পড়ছে। অনেকেই পড়ছেন বিপাকে। এতো চ্যালেঞ্জিং সময়েও অনেকে হাল ছাড়ছেন না। কাস্টোমারদের বুঝানোর চেষ্টা করছেন। অল্প অল্প করে অর্ডার করছেন। অনেকে শুধুমাত্র ব্যবসায় সচল রাখার জন্য আমদানি খরচে অথবা নামমাত্র লাভ রেখে পণ্য বিক্রয় করছেন।

তবে আশার আলো এই যে, চলমান পরিস্থিতিতে অনেক আমদানিকারকই আমদানি বন্ধ রেখেছেন। অন্যদিকে দূর্গাপূজাকে সামনে রেখে বাড়ছে পণ্যের চাহিদা। তাই এতোকিছুর মধ্যেও যারা কষ্ট করে ব্যবসা করে যাচ্ছেন তারা হয়তো আগামী দুই মাসে অনেক ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে পারবেন, কারণ এখন বাজারে চাহিদা অনুযায়ী পণ্য অনেক কম। ব্যবসায়ীরা তাদের কাজের সুবিধার্তে আমাদের ইমপোর্ট পার্টনার Handle With Care এর Kolkata to Dhaka Shipping Cost এর বিস্তারিত জেনে নিতে পারেন। এক নজরে দেখে নিন Kolkata to Dhaka Shipment Rate.

Back to blog